র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের অনুরোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

গণহত্যার ঘটনায় পাকিস্তানের ক্ষমা চাওয়া উচিত: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশ র‍্যাপিড অ্যাকশনের (র‌্যাব) সাবেক ও বর্তমান কয়েকজন কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতাদের অনুরোধ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

একইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে পালিয়ে থাকা বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত পাঠাতে সহায়তা চেয়েছেন তিনি। বুধবার (৬ এপ্রিল) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত সোমবার (৪ এপ্রিল) যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনের সঙ্গে বৈঠকের পরদিনও ওয়াশিংটনে ব্যস্ত সময় কাটান ড. মোমেন। এদিন তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর চাক শুমার এবং হাউস ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটির সদস্য কংগ্রেসম্যান স্টিভ চ্যাবোটের সঙ্গে বৈঠক করেন।

-জীবন আর্ট এন্ড ডিজিটাল সাইন

দুই বৈঠকেই তিনি র‌্যাবের প্রতি নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী তাদের কাছে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণে র‌্যাবের সাফল্য তুলে ধরেন। এ ছাড়া উভয় আইন প্রণেতার সঙ্গে বৈঠকে বঙ্গবন্ধুর দণ্ডপ্রাপ্ত খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দেওয়ার বিষয়টি উত্থাপন করেন।

পড়ুনঃ-  ৪০ বছর ও তদুর্ধ্ব বয়সীদের দেয়া হবে বুস্টার ডোজ

এ বিষয়ে সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতার সহায়তাও প্রত্যাশা করেন তিনি। একই সঙ্গে বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়ানোর আহ্বান জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। দুই গুরুত্বপূর্ণ আইনপ্রণেতার সঙ্গে বৈঠক ছাড়াও ওয়াশিংটন ডিসিভিত্তিক কয়েকটি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের অনুষ্ঠানে যোগ দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এসব অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ অভূতপূর্ব যে আর্থসামাজিক অগ্রগতি অর্জন করেছে তার বিস্তারিক বিবরণ তুলে ধরেন মন্ত্রী।

পড়ুনঃ-  রিমোট কন্ট্রোলে হুমকি দিচ্ছে বিএনপি: কৃষিমন্ত্রী

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সফরে থাকা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল-আলম হানিফ এমপি, সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক ও পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক চারঘাট ইউটিউব চ্যানেলে SUBSCRIBE করুন।