বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৪

বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৪
ShopDeal eCommerce Zone

বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচকে ভারতপাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচক-২০২২-এ এ তথ্য উঠে এসেছে। বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) যৌথভাবে বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচক-২০২২ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ করে আয়ারল্যান্ডভিত্তিক সংস্থা কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড ও জার্মানভিত্তিক ওয়েল্ট হাঙ্গার হিলফ। খবর এনডিটিভি।

বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচক (জিএইচআই) ২০২২-এ গত বছরের তুলনায় এ বছর আট ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ। অবশ্য মোট ১০০ স্কোরের মধ্যে ১৯.৬ স্কোর নিয়ে প্রতিবেশী দেশ ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। আগের বছর ১০০ স্কোরের মধ্যে বাংলাদেশের স্কোর ছিল ১৯.১।

বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচকে চলতি বছর ১২১ টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৪ তম। প্রতিবেশি ভারতের অবস্থান ১০৭ তম, আর পাকিস্তানের অবস্থান ৯৯ তম। ২০২১ সালে ১১৭টি দেশের মধ্যে এ তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৭৬।

-জীবন আর্ট এন্ড ডিজিটাল সাইন

এর আগে ২০২০ সালে বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচকে ১০৭টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৭৫তম। ২০২০ সালে ভারতের অবস্থান ছিল ৯৪ তম। পাকিস্তানের অবস্থান ছিল ৮৮ তম।

পড়ুনঃ-  র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের অনুরোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

বৈশ্বিক ক্ষুধা ‍সূচকের (জিএইচআই) ওয়েবসাইটে শনিবার (১৫ অক্টোবর) দেখা যায়, ৫-এর কম জিআইএইচ স্কোর নিয়ে চীন, চিলি, ক্রোয়েশিয়া, রুমানিয়া, তুরস্ক, বেলারুশ ও কুয়েতসহ ১৭টি দেশ চলতি বছরের তালিকার শীর্ষস্থান ভাগাভাগি করে নিয়েছে। তালিকায় এর পরেই আছে কোস্টারিকা, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ব্রাজিল আর উজবেকিস্তান।

চলতি বছরের এই সূচকে এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের ওপরে আছে শ্রীলঙ্কা। ১৩ দশমিক ৬ স্কোর নিয়ে দেশটির অবস্থান ৬৪তম। এরপর ১৫ দশমিক ৬ স্কোর নিয়ে ৭১তম স্থানে মিয়ানমার। আরেক প্রতিবেশী নেপালের অবস্থান ৮১তম ও আফগানিস্তানের অবস্থান ১০৯ তম।

পড়ুনঃ-  সিগারেট-মোবাইল-গাড়িসহ ৩৮ পণ্য আমদানি নিষিদ্ধ করল পাকিস্তান

প্রতিটি দেশের পরিস্থিতি বিচার করে চারটি মাপকাঠির ওপর ভিত্তি করে গ্লোবাল হাঙ্গার ইনডেক্স (জিএইচআই) তৈরি হয়েছে। এগুলো হলো, অপুষ্টির হার, ৫ বছরের কম বয়সীদের মধ্যে কম ওজনের শিশুর হার, ৫ বছরের কম বয়সীদের মধ্যে কম উচ্চতার শিশুর হার, ৫ বছরের কম বয়সী শিশুমৃত্যুর হার।

বাংলাদেশে কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর গ্রেটা ফিটজেরাল্ড বলেছেন, বাংলাদেশ খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিতে উল্লেখযোগ্য উন্নতি করেছে। তবে চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে। একটি উন্নয়নশীল ও সমৃদ্ধিশালী দেশ গড়ার পেছনে অপুষ্টি গুরুতর এবং জটিল বাধা। কাঙ্ক্ষিত উন্নতি করতে হলে যারা অপুষ্টির অধিক ঝুঁকিতে আছে, তাদের প্রাধান্য দিয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে।

পড়ুনঃ-  পদ্মা সেতু ঘিরে গ্যাস সুবিধা পাবে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষ

প্রতিবেদন অনুযায়ী, বর্তমানে বিশ্বে গুরুতর ক্ষুধা পরিস্থিতি বিরাজ করছে দক্ষিণ এশিয়ায়। এরপরই সাহারার দক্ষিণের আফ্রিকা অঞ্চলে দ্বিতীয় সবচেয়ে বেশি ক্ষুধার্ত পরিবেশ বিরাজ করছে। এ ছাড়া ৪০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে তীব্র খরার মুখোমুখি হয়েছে পূর্ব আফ্রিকার কিছু দেশ।

বৈশ্বিক ক্ষুধা সূচকে প্রতিবেশি ভারতের অবস্থান প্রসঙ্গে ভারতীয় কংগ্রেসের সাংসদ বলেন, ২০১৪ সাল থেকে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন সরকারের ৮ বছরে (ক্ষুধার সূচকে) আমাদের অবস্থান ক্রমাগত খারাপ হচ্ছে।

-মেডিনোভা ডায়াবেটিকস এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার

দৈনিক চারঘাট ইউটিউব চ্যানেলে SUBSCRIBE করুন।