পরিচালককে গোপনে চিঠি লিখতেন বিদ্যা বালান

বিদ্যা বালান

বলিউডের বোল্ড অভিনেত্রীদের তালিকায় বিদ্যা বালানের নাম থাকে বরাবরই উপরে। নায়িকা হতে হলে শুকনা ছিপছিপে গড়নের হতে হবে–এই ধারণা একেবারে পাল্টে দিয়েছিলেন এই অভিনেত্রী।

বলিউডে নিয়মিত সিনেমা করলেও এই অভিনেত্রীর সিনেমা জীবনের ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল বাংলা সিনেমা ‘ভালো থেকো’ দিয়ে। ২০০৩ সালে সেই সিনেমা পরিচালনা করেছিলেন গৌতম হালদার।

অবাঙালি এই অভিনেত্রীকে বাংলা সিনেমা সবসময় মুগ্ধ করে। বাংলা সিনেমা দেখেই বড় হয়েছেন তিনি। সত্যজিৎ রায়ের ‘মহানগর’ সিনেমা দেখে এত ভালো লেগেছিল যে, খাতা-কলম নিয়ে বসে গিয়েছিলেন সেই সময়ের ছোট্ট বিদ্যা বালান।

পড়ুনঃ-  যে কারণে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন কিংবদন্তি মোহাম্মদ আলি

পরিচালককে উদ্দেশ করে লিখে ফেলেছিলেন এক মস্তবড় চিঠি। তবে ডাকঘর পর্যন্ত গিয়ে উঠতে পারেননি কোনো দিন। সেই আক্ষেপ বিদ্যার আজও রয়ে গিয়েছে। এমন তথ্যই প্রকাশ করে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডি টিভি।

অভিনেত্রী একদিন জানতে পারলেন, তার প্রিয় পরিচালক প্রয়াত হয়েছেন। সেই সময় তিনি প্রচণ্ড কষ্ট পেয়েছিলেন। আজ তিনি বলিউডের প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী হয়েও তার মনে আক্ষেপ রয়ে গিয়েছে। তার কথায়: সত্যজিৎ রায় যদি আজ বেঁচে থাকতেন, তাহলে তার সিনেমায় অভিনয় করতে পারতেন বিদ্যা!

পড়ুনঃ-  কোকিলকণ্ঠী লতা মঙ্গেশকরের জীবনী

এই অভিনেত্রীর মতে, অনেকেই ‘চারুলতা’ এবং ‘পথের পাঁচালী’ নিয়ে মাতামাতি করেন, তবে তার কাছে সবচেয়ে বেশি পছন্দ ‘মহানগর’ সিনেমা।

বিদ্যার ঘরে সত্যজিতের সমস্ত সিনেমার চরিত্রগুলো নিয়ে একটি ছবি আঁকা রয়েছে। সিনেমার পোস্টারে ভর্তি হয়ে গেছে দেয়াল। কিন্তু পছন্দের পরিচালকের সঙ্গে কাজ করতে না পারার আক্ষেপ আজও হয় তার।