চারঘাটে খোকন হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও মানববন্ধন

চারঘাটে খোকন হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও মানববন্ধন

চারঘাটে মসজিদ কমিটির আধিপত্য বিস্তার ও ইফতার নিয়ে কটুক্তি করাকে কেন্দ্র করে মসজিদ কমিটির দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত খোকন আলী (৩০) হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

চারঘাটে খোকন হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও মানববন্ধন ১

শুক্রবার সকালে ঝাড়ু মিছিলটি উপজেলার নিমপাড়া ইউনিয়নের জোতকার্তিক গ্রামের মোড় হতে বিএন স্কুল পর্যন্ত প্রদক্ষিন শেষ করে এবং নন্দনগাছি বাজার রাস্তার দুই ধারে অবস্থান নেয়।

এসময় মামলার প্রধান আসামী মুকুল ও জিয়ারুলকে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে উপস্থিত জনতা। কলেজ শিক্ষক আসাদুজ্জামান সেলিম এর নেতৃত্বে এলাকার শত শত পুরুষ-মহিলা ও নিহত’র পরিবারবৃন্দ অংশগ্রহন করেন।

পড়ুনঃ-  এমপিও কমিটির সভা আজ, আসতে পারে যে সকল সিদ্ধান্ত…

মাবনবন্ধনে নিহত’র স্ত্রী রুপা বেগম বলেন, আমার স্বামীর হত্যার নায্য বিচার চাই। আমার এক মাত্র সন্তানকে পিতৃহারা করেছে সেই খুনি মুকুল ও জিয়ারুলের ফাসিঁ চাই বলে এক মাত্র সন্তানকে বুকে জড়িয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

নিহতের স্ত্রী ছাড়াও ওই এলাকার সাধারন মানুষেরা দ্রুত সময়ের মধ্যে মুকুলকে গ্রেপ্তার ও খুনের ঘটনার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি ফাসিঁর দাবি করেন। মানববন্ধন শেষে এলাকাবাসী হত্যা মামলার প্রধান আসামী মুকুলে কুচপুত্তলিকা দাহ করেন।

পড়ুনঃ-  জয়েন করুন সেন্টার ফর প্রফেশনাল ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামে

উল্লেখ্য যে, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় মসজিদ কমিটির আধিপত্য বিস্তার ও ইফতার করাকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় খোকন আলী (২৫) নামের এক ব্যাক্তি নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় দুপক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। বর্তমান সভাপতি এএইচএম কামরুজ্জামান ওরফে মুকুল হোসেনকে প্রধান আসামী করে ৩৮ জনের নাম উল্লেখ এবং ১০/১২ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে হত্যা মামলাটি দায়ের করেছেন নিহত খোকনের স্ত্রী রুপা বেগম। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ১৯ জনকে আটক করা হয়েছে। মুল আসামী মুকুলসহ অন্য আসামীরা বতর্মানে পলাতক রয়েছে।

পড়ুনঃ-  বাঘায় প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনী মেলা অনুষ্ঠিত

এ বিষয়ে চারঘাট মডেল থানার অফিসার ইনর্চাজ মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, অতিশীঘ্রই প্রধান আসামী মুকুলসহ অন্য আসামীদের গ্রেপ্তার করা হবে এবং অভিযান অব্যাহত রয়েছে।