চারঘাটের শলুয়া থেকে ১৩ বস্তা ঔষধ উদ্ধার

চারঘাটের শলুয়া থেকে ১৩ বস্তা ঔষধ উদ্ধার

চারঘাটের শলুয়া তালতলা এলাকা থেকে ১৩ বস্তা ঔষুধ উদ্ধার করেছে চারঘাট মডেল থানা পুলিশ।

শুক্রবার বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার শলুয়া তালতলা এলাকায় চারঘাট মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান চালিয়ে এ ঔষুধ উদ্ধার করে।

উদ্ধার হওয়া ঔষধ গুলো অপসোনিন ফার্মা লিমিটেডের ক্লোনাজিপাম গ্রুপের পেইস ০.৫ ট্যাবলেট। যা সাধারনত মানসিক সমস্যা (এগোরাফোবিয়া) বা মানসিক অস্থিরতা (প্যানিক ডিসঅর্ডার) রোগীকে দেওয়া হয়ে থাকে।

পড়ুনঃ-  অনুদান বন্ধ করতে দুই বছর আগে বিএনপির চিঠি

পুলিশ সূত্রে জানাযায়, কে বা কাহারা ঔষুধগুলো অসৎ ব্যবসায়ের উদ্দেশ্যে অন্যত্র নেয়ার জন্য তালতলায় অবস্থান করছিলো। এমতাবস্থায় মডেল থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থলে পুলিশের উপস্থিতিটের পেয়ে বস্তাভর্তি ঔষুধ রেখে পালিয়ে যায় এ অসাধু ব্যবসায়ী চক্র।

উদ্ধার হওয়া ঔষধের বিষয়ে জানতে চাইলে অপসোনিন ফার্মা লিমিটেডের ডিপো ইনচার্জ মি. জাফর সাদেক ও বানেশ্বর-চারঘাট এরিয়ার মার্কেটিং অফিসার মি. শামিম জানান, উদ্ধার হওয়া মেডিসিন সম্পর্কে জানানেই। পেইস ০.৫ ট্যাবলেট একটি প্রেস্ক্রিপ্সন মেডিসিন। এ এরিয়ায় এতো পরিমানে আসল ঔষধ থাকার কথা নয়। উদ্ধার হওয়া ঔষধ সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে মেডিসিন গুলো আসল না নকল।

পড়ুনঃ-  এ বছরের জনপ্রতি সর্বোচ্চ ফিতরা ২৩১০ ও সর্বনিম্ন ৭৫ টাকা

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১৩ বস্তা ”পেইস ০.৫” ঔষুধ উদ্ধার করেছি। ধারনা করা হচ্ছে এগুলো নকল ঔষধ। আমরা যাচাই বাছায়ের চেষ্টা করছি। উদ্ধারকৃত মেডিসিনের বাজার মূল্য প্রায় ১কোটি ২০লক্ষ টাকা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মডেল থানায় মামলা প্রস্তুতি চলছে।